দেশে এখন হাওয়া ভবন নেই, দেশ ও মানুষের কথা ভাবুন

ছবি সংগ্রহীত
‘এখন হাওয়া ভবন নেই, দেশ ও মানুষের কথা ভাবুন’
ব্যবসায়ীদের জন্য সরকারের নেয়া নানা পদক্ষেপের কথা স্মরণ করিয়ে দিয়ে তাদেরকে দেশ ও মানুষের কথা বেশি করে ভাবতে আহবান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেছেন, এখন তো হাওয়া ভবন নেই, তাই আপনাদের দেশ ও মানুষের কথা ভাবতে হবে।

বুধবার (২৬ অক্টোবর) সকালে গণভবনে ভোগ্যপণ্য আমদানি-রপ্তানিতে যুক্ত ব্যবসায়ীদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন।
তিনি বলেন, সরকার গঠনের পর ব্যবসায়ীরা সে যে দলেরই হোক আমরা কিন্তু ওখানে দল বাছতে যাইনি। যে দলেরই হোক, যাতে তারা ব্যবসাটা ব্যবসায়ী হিসেবে করতে পারে, সেই পরিবেশটা আমি সৃষ্টি করে দিয়েছি।

শেখ হাসিনা বলেন, এখানে কোনো হাওয়া ভবনও নেই, আর পিএমওতে কোনো উন্নয়ন উইংও নেই যে, হাওয়া ভবনে এক ভাগ দিতে হবে, উন্নয়ন ভবনে এক ভাগ দিতে হবে বা অমুক স্থানে দিতে হবে। এই যন্ত্রণা তো আপনাদের ভুগতে হয় না এখন। এটা তো আপনারা নিশ্চয়ই স্বীকার করবেন। সেই যন্ত্রণা থেকে তো সবাই মুক্ত।

আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা বলেন, এখন প্রফিটের (লাভ) ব্যাপারে চিন্তা করেন। আগে তো একটা বড় অংশ হাওয়া হয়ে যেতো। এখন আর সেই হাওয়া হওয়ার ব্যবস্থাটা নাই। সেখান থেকে সবাইকে মুক্ত রেখেছি। সেটাই মাথায় রেখে যদি মনে করেন যে, দেশের কথা চিন্তা করে, দেশের মানুষের কথা চিন্তা করে…।

তিনি বলেন, মহামারীর সময়ে উন্নত দেশের অনেক কলকারখানা ও শিল্প-কারখানা বন্ধ হয়ে গিয়েছিল। আমরা বলেছিলাম কারখানা এবং শিল্পগুলো বন্ধ হতে দেব না, আমাদের চালিয়ে যেতে হবে… আমি শ্রমিকদের মজুরি নিশ্চিত করেছি, প্রণোদনা প্যাকেজ দিয়েছি।

রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ ও নিষেধাজ্ঞার প্রেক্ষাপটে শেখ হাসিনা বলেন, পৃথিবীর উন্নত দেশগুলোতে ইন্ডাস্ট্রি বন্ধ, তাদের সব কর্মকাণ্ড বন্ধ। আমরা বলেছি আমরা এখানে বন্ধ হতে দেবো না। এখানে চালু করে রাখতে হবে। শ্রমিকদের বেতন, এই যে গার্মেন্টস, তার বেতন তো আমি দিয়ে দিলাম সব। প্রণোদনা প্যাকেজ করলাম, বিশেষ বরাদ্দ দেয়ার ব্যবস্থা করলাম।

রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ এবং কোভিড মহামারির কারণে বিশ্ব সংকটের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে, এ কথা আবারও স্মরণ করিয়ে দিয়ে ব্যবসায়ীদের দেশ ও জনগণের কথা চিন্তা করে ব্যবসা করার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *