বিএনপির সমাবেশে যোগ দেওয়ায় বাড়িঘরে হা”মলা

ছবি সংগ্রহীত
খুলনায় বিএনপির বিভাগীয় গণসমাবেশে যোগ দেওয়ায় বাগেরহাটের কচুয়ায় বাড়িঘরে হামলার ঘটনা ঘটেছে। আজ রোববার দুপুরে উপজেলার গজালিয়া ইউনিয়নের জুবাই গ্রামে এশারত আলী শেখের বাড়িতে এ হামলা হয়।

হামলায় এশারত আলী শেখ, তাঁর ছেলে ইখলাসুর রহমান, স্ত্রী শাহানারা বেগম এবং প্রতিবেশী রুনা আক্তার আহত হন। ইখলাসুর রহমানকে গুরুতর অবস্থায় খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

আহত ইখলাস মোবাইল ফোনে বলেন, বিএনপির গণসমাবেশে যোগ দিতে শনিবা খুলনায় যাই। আজ দুপুরে বাড়ি ছিলাম। হঠাৎ করে ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি আরজু, ছাত্রলীগের সভাপতি জসিম মাঝিসহ ৭-৮ জন বাড়িতে হামলা করে। সবাই মিলে আমাকে বাঁশ দিয়ে মারছিল আর গালাগালি দিয়ে বলতে থাকে- খালেদা জিয়া কি তোর মা হয়, যে সমাবেশে যাস?

এ বিষয়ে জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি এমএ সালাম বলেন, খুলনার সমাবেশে যোগ দেওয়ায় আওয়ামী সন্ত্রাসীরা কচুয়ায় আমাদের এক কর্মীর বাড়িতে হামলা ও মারধর করেছে। গুরুতর আহত ইখলাসুরকে খুলনা মেডিকেলে পাঠানো হয়েছে। এই হচ্ছে ক্ষমতাসীনদের গণতন্ত্রের নমুনা।

তবে অভিযোগ অস্বীকার করে ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি জসিম মাঝি বলেন, ছাত্রলীগ-যুবলীগের নেতাকর্মীরা এলাকায় মহড়া দিচ্ছিল। তখন আমাদের সঙ্গে থাকা সুমন ভাই ইখলাসের বাড়িতে পাওনা টাকা চাইতে যায়। কিন্তু ইখলাস বাড়িতে ছিল না, তার মায়ের সঙ্গে আমাদের কিছুটা কথা কাটাকাটি হয়েছে। কিন্তু তাকে মারধর করা হয়নি। তবে সামনে পেলে মারধর করা হতো বলে জানান এই ছাত্রনেতা।

কচুয়া থানার ওসি মো. মনিরুল ইসলাম ইসলাম বলেন, এ ধরনের কোনো বিষয় আমাদের জানা নেই। এখন পর্যন্ত কেউ কোনো অভিযোগ দেয়নি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *