সাউথ আফ্রিকার বিপক্ষে ১৮০ রান করতে চায় বাংলাদেশ

ছবি সংগ্রহীত
চলমান টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে সিডনিতে আগামীকাল প্রোটিয়াদের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ দল। টিকে থাকার এই ম্যাচে ভয় থাকবে সাউথ আফ্রিকার। আর সেই সুযোগ কাজে লাগাতে চায় বাংলাদেশ। এর আগে নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে ১৪৪ রান করেও জয় পেয়েছে বাংলাদেশ। তবে, এবার প্রোটিয়াদের বিপক্ষে ১৮০-১৯০ রান লাগতে পারে বলে মনে করছেন সাকিব। এই ম্যাচের সংবাদ সম্মেলনে এমনটাই জানান টাইগার অধিনায়ক।

এদিকে সিডনি ক্রিকেট গ্রাউন্ডে ম্যাচ শুরু আগামীকাল সকাল ৯টায়। এ নিয়ে সাকিব বলেন, উইকেট বিবেচনায় এই ম্যাচে আগের চেয়ে হয়তো বেশি রান করতে হবে। নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে ১৪৫ রান করেছি এবং সেটা ডিফেন্ড করতে পেরেছি। তবে, সিডনির ব্যাটিং ফ্রেন্ডিলি উইকেটে ১৮০ এর আশেপাশে রান করার লক্ষ্য নিয়ে মাঠে নামতে চায় দল।

এছাড়া স্পিন অ্যাটক দিয়ে পরিচিত প্রতিপক্ষকে হারিয়ে সেমির পথে এগিয়ে যাওয়ার পরিকল্পনা সাকিবের। অধিনায়ক জানান, প্রোটিয়া পেসারদের মোকাবেলা করা বড় চ্যালেঞ্জিং কাজ, ওদের স্পিন অ্যাটাকও বৈচিত্র্যে ভরা। ডি কক, মিলারের মতো ওয়ার্ল্ড ক্লাস ব্যাটারও থামাতে হবে দ্রুত। পরিকল্পনা সাজিয়ে ফেলেছেন সাকিব। যেখানে স্পিন অ্যাটকেই বেশি জোর দেয়া হবে। মিরাজকে একাদশে ফিরিয়ে বসিয়ে রাখা হতে পারে রাব্বিকে।

এদিকে গত কয়েক ম্যাচে বাংলাদেশের বোলিং ও ফিল্ডিং নিয়ে সন্তুষ্ট সাকিব। এছাড়া ব্যাটিংয়েও ধীরে ধীরে স্বস্তি পাওয়া যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ অধিনায়ক। তবে, সাকিব-লিটনদের এমন দল হয়ে উঠতে সময় লেগেছে অনেক। তাই শুধু একটা জয় নয়, সাকিবের অধিনায়কত্ব, তাসকিন-লিটনদের দায়িত্ব নেয়ার প্রবণতা-দলকে একসূতোয় বেঁধেছে। কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে একে অন্যের জন্য, দলে জন্য সর্বোচ্চ দিতে শিখিয়েছে। মিশন সাউথ আফ্রিকর আগে, আত্মবিশ্বাসী, প্রত্যায়ী বাংলাদেশ দল।

সাকিব আরও বলেন, আমরা সবাই যা যা করেছি তার থেকে যেন প্রতি ম্যাচে ৫-১০ শতাংশ বেশি উন্নতি করতে পারি। কারণ, এখনও আমাদের অনেক জায়গা আছে যে জায়গাগুলোতে আমরা আরও বেশি নিখুঁত হতে পারি।

আমার কাছে মনে হয় যে আমরা ফিল্ডিংটা খুবই ভালো করছি, আমাদের ফাস্ট বোলিংটা খুবই ভালো আছে। ব্যাটিংটা আস্তে আস্তে আমার মনে হয় যে ড্রেসিংরুমে আমরা একটু স্বস্তি পেতে শুরু করেছি। এগুলো আমাদেরকে সাহায্য করবে আরও বেশি ভালো খেলার জন্য।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *