বারবার ইমপ্রুভ করার কথা বলতে আমার ভালো লাগে না: সাকিব

প্রথম ম্যাচে নেদার‍ল্যান্ডসের বিপক্ষে জয় দিয়ে বিশ্বকাপ শুরু করে দর্শকদের মনে আশা দেখিয়েছিল টাইগাররা। কিন্তু দ্বিতীয় ম্যাচেই দেখা গেলো টি-টোয়েন্টির চিরচেনা টাইগার বাহিনী। বোলিংয়ে ব্যর্থতার পর ব্যাটিংয়ে ভরাডুবি। এতেই ২০৬ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ম্যাচ হারেন ১০৩ রানে।

ম্যাচ শেষে প্রেস কনফারেন্সে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়েছিলেন বাংলাদেশ অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। জানিয়েছেন কেন টি-টোয়েন্টিতে ভালো করতে পারছে না টিম টাইগার। আজ ব্যাট বল হাতে সাকিব নিজেও ছিলেন মলিন। সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাব দিতে গিয়ে পুরো টিমকেই দুশলেন তিনি।

ব্যাটিং নিয়ে বলতে গিয়ে বলেন, কারণ খুঁজলে অনেক রকম কারণই আসতে থাকে। আমরা যে কখনো বড় স্কোর করিনি তা কিন্তু না। আবার সুযোগ যে নেই তাও না। আজ সিডনির উইকেটটা খুব ভালো ছিল। এখানে আমাদের ব্যাটিং ডিসপ্লে শো করার সুযোগ ছিল কিন্তু আমরা পারিনি। আমাদের অনেক ভালো একটা শুরু ছিল। দুই ওভার দেখার পর সবাই ভাবতে শুরু করেছিল যে কিছু একটা হতে যাচ্ছে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত হয়নি। আসলে জিনিসটা এরকমই। আমাদের এই জায়গাগুলোতেই ইমপ্রুভমেন্ট করা দরকার। যদিও বারবার ইমপ্রুভ করার কথাটা বলতেও আমার এতো ভালো লাগে না। টি-টোয়েন্টি ম্যাচই আসলে এমন।

ম্যাচ প্ল্যানিং নিয়ে বলেন, আমাদের প্ল্যানিংয়ে খুবেকটা ভুল ছিল না কিন্তু আমরা এক্সিউশনে বেশ কিছু ভুল করেছি। ওই জায়গাগুলোতে উন্নতি করার অনেক স্কোপ আছে। বড় রান তাড়া করে জিততে না পারার কারণ বলতে গিয়ে সাকিব বলেন, এটি হতে পারে বিশ্বাস। আমরা ডমেস্টিক ক্রিকেটেও খুব একটা বড় রান চেইজ করে জিতি না। আমরা হয়ত বিশ্বাস করতে শিখি নাই যে বড় রান তাড়া করে জেতা যায়।

ত্রিদেশীয় কাপের পর ক্যাপটেন বলেছিলেন, আমাদের প্রস্তুতি ভালো। বিষয়টি মনে করিয়ে দিয়ে এক আজকের বড় ব্যাবধানের হার নিয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, নিউজিল্যান্ডের সাথে অস্ট্রেলিয়াও বড় ব্যবধানে হেরেছে। টি-টোয়েন্টি ম্যাচগুলোতে এগুলো হওয়া খুবই স্বাভাবিক। খেলাটা অনেক এক্সাটিং একইসাথে এন্টারটেইনিং। তাই এরকম ডিফিকাল্ট রেজাল্টগুলোও আপনাকে হজম করতে হবে মাঝে।

স্পিনারদের বোলিংয়ে খুশি কিনা জানতে চাইলে সাকিব বলেন, দেখুন আজ পুরো বোলিং ডিপার্টমেন্টেই আমরা যেভাবে করতে পারতাম ওভাবে করিনি। এককভাবে দু একজন ভালো করতে পারে কিন্তু পুরো টিম ভালো না করলে আসলে সেটা ভালো হিসেবে ধরা হয় না। আমরা ওভারঅল টিম হিসেবে ভালো পারফর্ম করতে পারিনি।

সাকিবের উইকেটের রিভিউ না নেয়ার ব্যাপারে বলেন, আমি রিভিউ নিয়েই ফেলেছিলাম পরে আবার চেইঞ্জ করেছি। পরে যখন দেখলাম ‌’আউট সাইড লেগ’ তখন খারাপ লেগেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *