রাগের মাথায় ফাঁ’স দিলেন স্ত্রী, ভিডিও করলেন স্বামী

ছবি সংগ্রহীত
স্ত্রীর মৃত্যুর পর শ্বশুরকে বলেন আত্মহত্যা করেছে তাঁর মেয়ে। এ ঘটনা প্রমাণ করতে নিজের ধারণ করা আত্মহত্যাচেষ্টার একটি ভিডিও শ্বশুরকে দেখান সঞ্জয় গুপ্ত নামে এক ব্যক্তি। ভারতের উত্তর প্রদেশের কানপুরে গত মঙ্গলবার এ ঘটনা ঘটে।

নানা কারণে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া লেগেই থাকতো। এক পর্যায়ে তা চরমে পৌঁছায়। পরে রাগের মাথায় সিলিং ফ্যানের সঙ্গে দড়ি দিয়ে ঝুলতে যান স্ত্রী। কিন্তু তাকে বাধা দেওয়া পরিবর্তে সেই মুহূর্তের ভিডিও করতে থাকেন স্বামী।

ওই সময় আত্মহত্যার চেষ্টায় সফল না হলেও পরে একইভাবে গলায় দড়ি দিয়ে আত্মঘাতী হন ওই নারী। পরে পুলিশ ঘর থেকে তার ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার করে। মৃতের নাম শোভিতা গুপ্তা। তার আত্মহত্যার চেষ্টার ভিডিও ক্যামেরাবন্দি করার অভিযোগে তার স্বামী সঞ্জীবকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

ভারতীয় গণমাধ্যম আনন্দবাজারের প্রতিবেদন অনুযায়ী, সঞ্জীবের বিরুদ্ধে যৌতুকের দাবিতে স্ত্রীকে চাপ দেওয়ার অভিযোগ করেছেন শোভিতার বাবা। পাঁচ বছর আগে শোভিতা-সঞ্জীবের বিয়ে হয়েছিল বলে জানিয়েছে পুলিশ। ওই দম্পতির তিন বছরের এক কন্যা সন্তানও রয়েছে।

প্রতিবেশীরা জানিয়েছেন, প্রায় প্রতি দিনই নানা কারণে ওই দম্পতি ঝগড়া করতেন। মঙ্গলবার সেই ঝগড়া চরমে পৌঁছে। সেদিন সকাল থেকেই অশান্তি চলছিল বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা। এক সময় রাগের মাথায় গলায় দড়ি দিতে যান শোভিতা।

কিন্তু তাকে বাধা না দিয়ে ঘরে বসেই তার ভিডিও করেন সঞ্জীব। তিনি পুলিশকে জানিয়েছেন, ওই ভিডিও দেখিয়ে শোভিতার বাবা-মায়ের কাছে তাদের মেয়ের কাণ্ডকারখানার জন্য নালিশ করার পরিকল্পনা ছিল তার।

সঞ্জীব জানান, তাদের ঝগড়া থেমে যায় তার পরেই। এক সঙ্গে তারা দুপুরের খাবারও খেয়েছিলেন। তার পর মেয়েকে নিয়ে দু’জন ছাদে উঠেছিলেন। সেখানে ফের অশান্তি বাঁধে। ছাদ থেকে রাগ করে নেমে আসেন শোভিতা।

কিছু ক্ষণ পর ঘরে গিয়ে তার ঝুলন্ত দেহ দেখতে পান সঞ্জীব। সঙ্গে সঙ্গে ডাকাডাকি করে লোক জড়ো করেন। পরে স্ত্রীকে হাসপাতালে নিয়ে যান, কিন্তু চিকিৎসকরা তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *