সমাবেশে যোগ দিতে কলা-চিড়া নিয়ে সাইকেলে ঠাকুরগাঁও থেকে রংপুরে

ছবি সংগ্রহীত
সাইকেলে ধানের শীষ লাগিয়ে কলা আর চিড়া নিয়ে সমাবেশে যোগ দিতে যাচ্ছেন শরিফুল ইসলাম- সমকাল
সাইকেলে ধানের শীষ লাগিয়ে কলা আর চিড়া নিয়ে সমাবেশে যোগ দিতে যাচ্ছেন শরিফুল ইসলাম- সমকাল

আগামীকাল শনিবার রংপুরে বিএনপির বিভাগীয় গণসমাবেশ। গণসমাবেশের আগের দিন ধর্মঘটের ডাক দিয়ে শুক্রবার সকাল ৬টা থেকে ঠাকুরগাঁও-রংপুর সড়কে দূরপাল্লার সব বাস চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। তবুও থেমে নেই বিএনপি নেতাকর্মীরা।

যে যেভাবে পারছেন রংপুরে সমাবেশের যোগদানের জন্য বাড়ি ছাড়ছেন। তাদের মধ্যে অন্যতম ঠাকুরগাঁও সদরের বেগুরবাড়ী এলাকার শরিফুল ইসলাম। তিনি সঙ্গীসহ বাইসাইকেলে রংপুরের উদ্দেশে বের হয়েছেন। সঙ্গে নিয়েছেন বাড়ির কলা আর চিড়া।

শরিফুল সমকালকে বলেন, ‘ইচ্ছে ছিলো বাসে করে রংপুরে বিএনপির গণসমাবেশে যাব। তা আর হলো না পরিবহণ ধর্মঘটের কারণে। সে কারণে সাইকেল নিয়ে রাওনা হয়েছি। পথে ক্ষুধা নিবারণের জন্য বাড়ির কলা আর চিড়া সঙ্গে নিয়েছি।’

বিএনপির নেতা-কর্মীরা বলছেন, গণসমাবেশে মানুষের উপস্থিতি ঠেকাতে রংপুরের সব রাস্তায় বাস বন্ধের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। আশপাশের অনেক জেলাতেও বাস চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। তবে বাস না পেলেও সাইকেল, অটোরিকশা, মোটরসাইকেল, ভ্যান কিংবা প্রয়োজনে পায়ে হেঁটেই বিএনপির নেতাকর্মীরা রংপুর পৌঁছাচ্ছেন।

জেলা শ্রমিক দলের সভাপতি আবদুল জব্বার বলেন, বৃস্পতিবার রাতে ঠাকুরগাঁও থেকে অর্ধশতাধিক বাসে নেতা-কর্মীরা রংপুরে গেছেন। যারা যেতে পারেননি, তারা শনিবার সকাল পর্যন্ত সেখানে পৌঁছাবেন।

সদর উপজেলা বিএনপির সভাপতি আব্দুল হামিদ সমকালকে বলেন, ‘বৃস্পতিবার রাতে প্রায় ৬ হাজার নেতাকর্মী নিয়ে রংপুরে অবস্থান করছি। এ সরকারকে (আওয়ামী লীগ) মানুষ আর ক্ষমতায় দেখতে চায় না। সে কারণে সব বাধা উপেক্ষা করে রংপুরে মানুষ ছুটে আসছে।’

ভিডিও দেখতে সাবস্ক্রাইব করুন সমকাল ইউটিউব
জেলা বিএনপির সভাপতি তৈমুর রহমান বলেন, ‘গত দুইদিনে ১২ হাজারেরও বেশি নেতাকর্মী রংপুর পৌঁছেছেন। রংপুরে গণসমাবেশে জেলা থেকে ১৫ হাজারেরও বেশি নেতা-কর্মী অংশগ্রহণ করবেন।’

এদিকে ঠাকুরগাঁও কেন্দ্রেীয় বাস ট্রার্মিনাল থেকে রংপুর সড়কে প্রতিদিন ১৫টি বাস চলাচল করে। তবে শুক্রবার সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত মাত্র ৭টি বাস চলছে সৈয়দপুরের রাবেয়া মোড় পর্যন্ত।
সূত্র সময় কল

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *