রংপুরে সমাবেশস্থলে বাড়ছে বিএনপি নেতাকর্মীদের ভিড়

বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে রংপুর কালেক্টরেট ঈদগাহ মাঠে সমাবেশস্থলে বাড়তে থাকে বিএনপি নেতাকর্মীদের ভিড়। সমাবেশ শুরুর কয়েকঘণ্টা আগেই বিভাগীয় গণসমাবেশে যোগ দিতে মিছিল-স্লোগান নিয়ে আসতে শুরু করেছে দলের নেতাকর্মীরা। সমাবেশস্থল ছাড়াও আশপাশের অলিগলিতে অবস্থান নিতে দেখা গেছে অনেককে। হাতে সরকারবিরোধী বিভিন্ন ব্যানার ফেস্টুন।

শনিবার (২৯ অক্টোবর) সকালে সমাবেশস্থল ঘুরে এমন চিত্র দেখা গেছে।এর আগে গণসমাবেশে যোগ দিতে আগের দিনই সমাবেশস্থলে এসে উপস্থিত হয়েছেন কয়েক হাজার নেতাকর্মী। রাতেই কানায় কানায় পূর্ণ যায় ঈদগাহ মাঠ। অনেকে মাঠেই খড়-কম্বল বিছিয়ে শুয়ে পড়ে।গল্প-গানে মাঠেই রাত কাটে তাদের।

পঞ্চগড় থেকে আসা স্বেচ্ছাসেবক দলের কর্মী ওয়াদুদ আলী বলেন, পরিবহন ধর্মঘটের কারণে বাড়ি থেকে অনেক কষ্ট করে আসতে হয়েছে। গাড়ি না থাকায় ভেঙে ভেঙে এসেছি। ২০ কিলোমিটার রাস্তা হেঁটে এসেছি। কিছুক্ষণ বন্ধুদের সঙ্গে গল্প করলাম। পরে খড় বিছিয়ে গায়ে পাতলা কম্বল জড়িয়ে শুয়ে পড়ছি। একটু শীত অনুভব করছি।

লালমনিরহাটের পাটগ্রাম থেকে এসেছেন ছাত্রদল নেতা সোহেল রানা। তিনি বলেন, সকালে ট্রেনে এসেছি। বাড়ি থেকে রেল স্টেশন যাওয়ার পথে পুলিশ তল্লাশিও করেছেন।

এদিকে, শুক্রবার (২৮ অক্টোবর) ভোর থেকে চলছে পরিবহন মালিক সমিতির ডাকা বাস ধর্মঘট। ধর্মঘট চললেও বিভাগের আট জেলা বিশেষ করে ঠাকুরগাঁও, পঞ্চগড়, দিনাজপুর, গাইবান্ধা ও লালমনিরহাট জেলার বিভিন্ন উপজেলা থেকে ট্রাক বাস ভাড়া করে এবং ট্রেনযোগে রংপুরে এসে পৌঁছেছেন হাজার হাজার নেতাকর্মী। তারা নগরীর বিভিন্ন অস্থায়ী ক্যাম্পে অবস্থান নেন।

বিএনপির কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান ও রংপুর বিভাগীয় সমাবেশের সমন্বয়কারী এ জেড এম জাহেদ হোসেন গণমাধ্যমকে বলেন, অবৈধ সরকারের টনক নড়ে গেছে। সারাদেশে গণজাগরণ দেখে ভয় পেয়েছে। সেজন্য সমাবেশের আগে বাস বন্ধ করে দিয়েছে। তবে আমাদের এ সমাবেশকে প্রতিহত করতে পারবে না তারা৷

রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ (আরপিএমপি) কমিশনার নুরে আলম মিনা গণমাধ্যমকে বলেন, বিএনপির নেতাকর্মীদের আমরা শান্তিপূর্ণভাবে সমাবেশ করার অনুমতি দিয়েছি। সমাবেশ ঘিরে যাতে কোনো ধরনের সহিংসতা না ঘটে, সেজন্য কয়েক দফায় নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হবে।

উল্লেখ্য, পূর্ব ঘোষিত কর্মসূচির অংশ হিসেবে শনিবার দুপুরে রংপুর কালেক্টরেট ঈদগাহ মাঠে বিভাগীয় গণসমাবেশ করবে বিএনপি। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেবেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *