১২০০ ইজিবাইক-রিকশা-ভ্যানে রংপুরে আসছেন নেতাকর্মীরা

ছবি সংগ্রহীত
রংপুরে বিএনপির বিভাগীয় গণসমাবেশে যোগ দিতে লালমনিরহাটের বড়বাড়ী ও নীলফামারীর সৈয়দপুর থেকে ব্যাটারিচালিত ১২০০ ইজিবাইক, ভ্যান ও রিকশায় করে হাজার হাজার নেতাকর্মী রংপুরে আসেন।
বিএনপির প্রতীক ধানের শীষ হাতে নিয়ে রংপুরে বিএনপির বিভাগীয় গণসমাবেশে যোগ দিতে

লালমনিরহাটের বড়বাড়ী ও নীলফামারীর সৈয়দপুর থেকে ১২০০ ব্যাটারিচালিত ইজিবাইক, ভ্যান ও রিকশায় করে হাজার হাজার নেতাকর্মী রংপুরে এসেছেন। গণপরিবহণ ধর্মঘটসহ পথে পথে বিভিন্ন বাধার পরও ভোটাধিকার পুনঃপ্রতিষ্ঠা ও বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তির দাবিসহ মোট নয়টি দাবিতে রংপুরে গণসমাবেশ কর্মসূচি পালন করছে বিএনপি।

আজ শনিবার দুপুর দুইটায় শহরের কালেক্টরেট ঈদগাহ মাঠে সমাবেশ আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হবে। গত রাত থেকে মাঠ কানায় কানায় পূর্ণ হয়ে গেছে। এর মধ্যে শুধু বড়বাড়ি থেকে পাঁচ শতাধিকের বেশি ইজিবাইকে করে সকাল সাড়ে ৭টার দিকে রংপুরের সাতমাথা এলাকায় এসে পৌঁছান দলের নেতাকর্মীরা। আর হাজার হাজার নেতাকর্মীসহ সৈয়দুপর থেকে প্রায় ৭০০ রিকশা-ভ্যানের একটি বহর এসেছে।

পরিবহণ ধর্মঘটের কারণে বাস চলাচল বন্ধ থাকায় বিকল্প হিসেবে বিশাল বহর নিয়ে বড়বাড়ি ও সৈয়দপুর থেকে আসা নেতাকর্মীদের এমন ঢলে উচ্ছ্বসিত সবাই। বেলা ১১টার মধ্যে পৃথকভাবে মিছিল নিয়ে সমাবেশস্থল কালেক্টরেট ঈদগাহ মাঠে এসেছেন তারা।

লালমনিরহাটের বড়বাড়ি থেকে প্রায় পাঁচ শতাধিক ইজিবাইকে করে সাড়ে ৪ হাজারের বেশি নেতাকর্মী এসেছেন বলে জানান হারুন অর রশিদ নামে বিএনপির এক নেতা। সকাল ৮টার দিকে তারা রংপুর শহরে প্রবেশ করেন। তাদের মুখে বিভিন্ন স্লোগানের পাশাপাশি হাতে ছিল ধানের শীষ আর বাঁশের লাঠিতে বাঁধা জাতীয় পতাকা। সারিবদ্ধভাবে একে একে ইজিবাইকগুলো সাতমাথা অতিক্রম করে পার্কের মোড়ে গিয়ে জমায়েত হয়। পরে সেখান থেকে বিশাল একটি মিছিল নিয়ে সমাবেশস্থলের দিকে যান তারা।

অন্যদিকে সৈয়দপুর থেকে আসা ৭০০ রিকশা-ভ্যানের বহরটির নেতৃত্ব দিচ্ছেন সৈয়দপুর জেলা বিএনপির নেতা আব্দুল খালেক ও উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক লোকমান হাকিম। শনিবার সকালে সৈয়দপুর কামারপুকুর, চিকলী ও খিয়ার জুম্মা নামক স্থান থেকে সমাবেশের উদ্দেশে রওনা দেয় ব্যাটারিচালিত রিকশা-ভ্যানগুলো।

সৈয়দপুর জেলা বিএনপির আহ্বায়ক অধ্যক্ষ আব্দুল গফুর সরকার জানান, রংপুর পরিবহণ মালিক সমিতির ডাকা দুই দিনের ধর্মঘটের কারণে বাস-ট্রাক সড়কে চলাচল না করায় বিকল্প হিসেবে এই পন্থা অবলম্বন করা হয়েছে। ৭০০ রিকশা-ভ্যানের বহরে সৈয়দপুরের বিভিন্ন ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড এবং পৌর বিএনপির শত শত নেতাকর্মী যোগ দিয়েছেন।

বিএনপির গণসমাবেশের দুদিন আগে ডাকা পরিবহণ ধর্মঘটের কারণে বাস-ট্রাক চলাচল বন্ধ রয়েছে। তবে বন্ধ নেই তিন চাকার যানসহ কার, মাইক্রোবাস, পিকআপ ভ্যান, মোটরসাইকেল, বাইসাইকেল চলাচল। বরং আগের যেকোনো সময়ের চেয়ে বিএনপির গণসমাবেশ ঘিরে ছোট ছোট এসব যানবাহনের পরিধি বেড়েছে। তবে দূরপাল্লা ও অভ্যন্তরীণ সব রুটে বাস চলাচল বন্ধ থাকায় চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন সাধারণ যাত্রীরা।

দুপুর ২টায় রংপুরের ঐতিহাসিক কালেক্টরেট ঈদগাহ মাঠে বিএনপির গণসমাবেশ শুরু হবে। সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। এছাড়া সমাবেশে দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, বেগম সেলিমা রহমান, ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকুসহ বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতারা।
সূত্র এনটিভি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *