‘জাতীয় পার্টি বোধ হয় সেই নির্যা’তনের কথা ভুলে গেছে : প্রধানমন্ত্রী’

আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, জিয়াউর রহমান আওয়ামী লীগের প্রতিটি নে’তাকর্মী এবং বিরো’ধী দলের নেতাদের অত্যা’চার-নির্যা’তন করে’ছে। জাতীয় পার্টি বোধ হয় এখন সেই নির্যাতনের কথা ভুলেই গেছে।
রোববার (৩০ অক্টোবর) জাতীয় সংসদের ২০তম অধি’বেশনে প্রয়াত সংসদ উপনেতা সৈয়দা সাজেদা চৌধুরী এবং সংসদ সদস্য শেখ এ্যানী রহমানের ওপর আনা শোক প্রস্তাবে আলোচ’নায় অংশ নিয়ে তিনি এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আওয়ামী লীগের প্রতিটি নেতাকর্মী জিয়া’উর রহমানের অত্যা’চার-নির্যা’তনের শি’কার হয়েছে। শুধু আওয়া’মী লীগ কেন, বি’রোধী দলের যারা আছেন; বি’রোধী দলের নেতা রওশন এরশাদ, জে’নারেল এরশাদ, আনোয়ার হো’সেন মঞ্জু থেকে যারাই আছেন, তারাও নির্যা’তনের শিকার হয়েছেন।

তিনি বলেন, সাজেদা চৌধুরী বা মতিয়া চৌধুরীকে গ্রেপ্তার করে জিয়াউর রহমান ডিভিশন না দিয়ে ফেলে রেখেছিলেন। খালেদা জিয়াও একই কাজ করেছিলেন। রওশন এরশাদ মাস্টার্স ডিগ্রি পাস। প্যানেল কোডে আছে মাস্টার ডিগ্রি পাস হলে ডিভিশন দিতে হয়। কিন্তু তাকে সাধারণ কয়েদিদের সঙ্গে ফেলে রেখেছিল। আমরা তো তা-ও খালেদা জিয়াকে অসুস্থ বলে মানবিক দৃষ্টিকোণ থেকে তাকে বাসায়

থাকার সুযোগ করে দিয়েছি। তিনি কিন্তু সেটা করেননি। বিমান বাহিনীর প্রধান জামাল উদ্দিন, তাকে গ্রেপ্তার করে তার নামে একটা ঘড়ি চুরির মামলা দেওয়া হয়েছিল। এরপর কোনো ডিভিশন না দিয়ে মাত্র দুটি কম্বল দিয়ে তাকে জেলখানায় পাঠিয়েছি’লেন। এভাবে তারা মানুষকে নি’র্যাতন করেছে।

আওয়া’মী লীগের সভাপতি বলেন, জাতীয় পার্টি বোধ হয় এখন সেই নির্যা’তনের কথা ভুলেই গেছে। অনেকে সেটা ভুলে গেছে। আওয়ামী লীগ তো সবার আগে নির্যাতিত। জি’য়াউর রহমান, খালেদা জিয়া, জেনারেল এরশাদ সবাই নির্যা’তন করেছে।

শেখ হাসিনা বলেন, সাজেদা চৌধু’রীর মতো অসংখ্য নিবেদিত নেতাক’র্মীরা দলের হাল ধরেছিল বলেই আওয়ামী লীগ নীতি-আদর্শ হারায়নি। আশা করি আমাদের নেতারা, প্রয়াত নেতাদের আদর্শ অনু’সরণ করেই সংগঠন করবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *