‘বাংলাদেশে এডিস মশা ছিল না, ফ্লাইটে আসতে পারে: স্থানীয় সরকারমন্ত্রী’

‘স্থানীয় সরকারমন্ত্রী তাজুল ইসলাম বলেছেন, আমাদের দেশে মশা ছিলো না। ফ্লাইটে হয়তো এই মশা আসতে পারে। প্রতিবেশী দেশের তুলনায় বাংলাদেশে ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা কম হলেও অস্বস্তিতে রয়েছি। রবিবার (৩০ অক্টোবর) সারাদেশে মশাবাহিত রোগ প্রতিরোধে সিটি করপোরেশন ও অন্যান্য মন্ত্রণালয়ের কার্যক্রম পর্যালোচনা নিয়ে চিবালয়ে অনুষ্ঠিত এক বৈঠকের শুরুতে তিনি সাংবাদিকদের এ কথা বলেন।

তাজুল ইসলাম বলেন, আমাদের দেশে এডিস মশা ছিল না, ডেঙ্গু রোগ ছিল না। এটা-তো বাইরের দেশ থেকে এসেছে। হয়ত ফ্লাইটে করে দুটি মশা দেশে এসে বংশ বিস্তার করেছে। তিনি বলেন, করোনাভাইরাস যেমন বিদেশ থেকে এসেছে ডেঙ্গু তেমনি বাহনে চড়ে বাংলাদেশ চলে আসে। ডেঙ্গু প্রতিরোধে জনসচেতনতা সৃষ্টিতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিয়েছে সরকার। তবে জনগণের সক্রিয় অংশগ্রহণ থাকলে ডেঙ্গু প্রতিরোধ করা সম্ভব।

শনিবার (২৯ অক্টোবর) স্বাস্থ্য অধিদফতরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুমের প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে সবশেষ ২৪ ঘণ্টায় ছয় জনের মৃত্যু হয়েছে। এনিয়ে চলতি বছর ডেঙ্গুতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৩৪ জনে। অন্যদিকে নতুন করে আরও ৮৬৯ জন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। নতুন আক্রান্তসহ বর্তমানে সারা দেশে বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি ডেঙ্গুরোগীর সংখ্যা তিন হাজার ৫৯৭ জন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *